রবিবার, নভেম্বর ১৯, ২০১৭
হোম > ডকুমেন্টারি অনুবাদ

মক্কা বিজয়, বিদায় হজ ও মহামানবের বিদায় দ্য লাইফ অব মোহাম্মদের অনুবাদ: শেষ পর্ব

মক্কায় প্রবেশ যা হোক, মোহাম্মদের (সা) শান্তিপূর্ণ জিহাদ এতদিনে সফলতার দ্বারপ্রান্তে উপনীত হলো। যেখানে তিনি জন্মেছিলেন, সাত বছর আগে জীবন বাঁচাতে খালি হাতে যে শহর ত্যাগ করে তিনি অভিবাসী হয়েছিলেন, হুদায়বিয়ার চুক্তির ফলে তিনি এবার সেই নগরীটিতে ফিরে যেতে পারছেন। একটি ক্রমবর্ধমান ধর্মীয় সমাজের প্রধান এবং আরবের সবচেয়ে শক্তিশালী নেতা হিসেবে

বাকিটুকু পড়ুন

হুদাইবিয়ার সন্ধি ও জিহাদের ধারণা দ্য লাইফ অব মোহাম্মদের অনুবাদ: পর্ব-১৩

কোরাইশ নিয়ন্ত্রিত কাবায় হজ করার ঘোষণা মোহাম্মদের (সা) বিরোধীরা বহুবিবাহকে কেন্দ্র করে তাঁর মর্যাদাহানীর সর্বোচ্চ প্রচেষ্টা চালিয়েছে। তা সত্ত্বেও তিনি এই বিয়েগুলোকে আরবে তাঁর ক্ষমতা নিশ্চিত করা এবং তা আরো বিস্তৃত করতে কাজে লাগিয়েছেন। এরপর তিনি পুনরায় মক্কার দিকে মনোযোগ দেয়ার ফুরসত পেলেন। ফলে তিনি বার্ষিক হজ পালনের জন্য মক্কায় অবস্থিত

বাকিটুকু পড়ুন

মহানবীর (সা) বহুবিবাহ এবং ইসলামে পর্দার বিধান দ্য লাইফ অব মোহাম্মদের অনুবাদ: পর্ব-১২

বহুবিবাহ ইস্যু ৬২৭ খ্রিস্টাব্দ। মোহাম্মদ (সা) ততদিনে মদীনায় একটি নিরাপদ ক্ষমতাকেন্দ্র গড়ে তুলেছেন। যদিও তাঁকে শেষ করে দেয়ার লক্ষ্যে প্রতিপক্ষ কোরাইশদের সকল প্রচেষ্টাকেই তিনি ব্যর্থ করে দিয়েছিলেন, তারপরও তারা যথেষ্ট ক্ষমতাবান ছিলো। মক্কা নগরী তখনো তারাই নিয়ন্ত্রণ করতো। আরবের সকল মানুষের কাছে তাঁর বাণী নিয়ে পৌঁছতে হলে তাঁকে এই বাধা অতিক্রম

বাকিটুকু পড়ুন

মহানবীর ব্যক্তিচরিত্র, আধ্যাত্মিকতা ও শরীয়াহ প্রসঙ্গ দ্য লাইফ অব মোহাম্মদের অনুবাদ: পর্ব-১১

তৃতীয় অধ্যায়: হলি পিস ওহী লাভের শারীরিক কষ্ট মোহাম্মদ (সা) সময়ে সময়ে যেসব ঐশীবাণী লাভ করেছিলেন, সেগুলোর সংকলনই হলো ‘আল কোরআন’। ওহী নাজিলের প্রতিটি ঘটনাই তাঁর জন্য ছিলো কষ্টকর ও দুঃসহ অভিজ্ঞতা। এই জন্য তাঁকে প্রতিনিয়ত কঠোর সাধনা করতে হতো। কখনো ওহী নাজিল হতো সরাসরি কথা হিসেবে, আবার কখনো স্বপ্নযোগে। সেক্ষেত্রে ওহীর

বাকিটুকু পড়ুন

উহুদ ও খন্দকের যুদ্ধ এবং বনু কোরাইযার বিশ্বাসঘাতকতা দ্য লাইফ অব মোহাম্মদের অনুবাদ: পর্ব-১০

উহুদ যুদ্ধ আরেকটি ঘটনা মদীনার পরিস্থিতিকে তখন আরো উত্তপ্ত করে তোলে। বদর যুদ্ধের প্রায় এক বছর পর কোরাইশরা আগের প্রতিশোধ নিতে মদীনা আক্রমণ করতে আসে। এবার তাদের বাহিনী ছিলো মোহাম্মদের (সা) বাহিনীর প্রায় তিন গুণ বড়। এটি কোনো মামুলী গোত্রীয় বিবাদ ছিলো না। এটি ছিলো মুসলমানদেরকে চিরতরে নির্মূল করার উদ্দেশ্যে একটি

বাকিটুকু পড়ুন

বদর যুদ্ধ ও বনু কাইনুকা অভিযান দ্য লাইফ অব মোহাম্মদের অনুবাদ: পর্ব-৯

কোরাইশদের হুমকি মোহাম্মদ (সা) এবং তাঁর সাহাবীরা মদীনায় এসেছিলেন একদম নিঃস্ব অবস্থায়। তবে মক্কায় তাঁরা প্রতিনিয়ত যে ধরনের অত্যাচার সইতেন, এখানে তা ছিলো না। শত্রুরা তখনো তাদেরকে বিনাশ করার হুঙ্কার দিয়ে যাচ্ছিলো। গোত্রভিত্তিক আরব সমাজে প্রতিশোধ গ্রহণের প্রবৃত্তি প্রবল থাকায় এই হুমকিকে আমলে না নিয়ে উপায় ছিলো না। ফলে মদীনায়ও মুসলমানরা নিজেদের

বাকিটুকু পড়ুন

মদীনা: আরবের প্রথম সিভিল স্টেট দ্য লাইফ অব মোহাম্মদের অনুবাদ: পর্ব-৮

মদীনায় নতুন জীবন মোহাম্মদ (সা) ও তাঁর সাহাবীরা মক্কার সাথে ইয়াসরিবের কোনো মিলই খুঁজে পেলেন না। ইয়াসরিব ছিলো মূলত একটি বিশাল মরুদ্যান। অনেকগুলো বস্তি নিয়ে শহরটি গড়ে ওঠেছে। প্রত্যেক বস্তিতেই একেকটা গোত্রের প্রাধান্য ছিলো। সেখানে গোত্রগুলোর মধ্যে প্রতিযোগিতা এবং এর পরিণামে দ্বন্দ্ব-সংঘাত ঘটতো। মহানবীর (সা) সম্মানে পরবর্তীতে ইয়াসরিবের নাম পরিবর্তন করে রাখা

বাকিটুকু পড়ুন

মেরাজের ঘটনা ও মদীনায় হিজরত দ্য লাইফ অব মোহাম্মদের অনুবাদ: পর্ব-৭

দ্বিতীয় অধ্যায়: ধর্মযুদ্ধ মেরাজের ঘটনা ৬২০ খ্রিস্টাব্দে মোহাম্মদের (সা) সবচেয়ে বড় দুজন শুভাকাঙ্খী মৃত্যুবরণ করেন। একজন হলেন তাঁর ২৫ বছরের বিশ্বস্ত জীবনসঙ্গী খাদীজা (রা)। অপরজন হলেন তাঁকে গোত্রীয় নিরাপত্তা প্রদানকারী চাচা আবু তালিব। ওই সময়টি ছিলো তাঁর জীবনের সবচেয়ে দুঃসময়। তবে কিছুদিনের মধ্যেই তিনি এমন এক অনন্যসাধারণ আধ্যাত্মিক অভিজ্ঞতা অর্জন করেছিলেন, যা

বাকিটুকু পড়ুন

কোরাইশদের বয়কট, অহিংস প্রতিরোধ, স্ত্রী ও চাচার মৃত্যু দ্য লাইফ অব মোহাম্মদের অনুবাদ: পর্ব-৬

শয়তানের আয়াত ব্যর্থ মনোরথে মক্কায় ফিরে কোরাইশরা মোহাম্মদ (সা) ও তাঁর সাহাবীদের উপর চড়াও হলো। তারা শহর জুড়ে নিষেধাজ্ঞা জারি করলো, মোহাম্মদ (সা) ও তাঁর পুরো গোত্রের সাথে কেউ কোনো কিছু করতে পারবে না। বিবাহ, ব্যবসা-বাণিজ্য, বাজারে ক্রয়বিক্রয় থেকে শুরু করে কোনো কিছুই তাদেরকে করতে দেয়া হতো না। মোহাম্মদ (সা) ও

বাকিটুকু পড়ুন

দাওয়াতী কাজের সূচনা, নির্যাতন ও আবিসিনিয়ায় হিজরত দ্য লাইফ অব মোহাম্মদের অনুবাদ: পর্ব-৫

দাওয়াতী কাজের সূচনা শুরুতে মোহাম্মদ (সা) ঘনিষ্টজনদের মাঝে তাঁর এই বাণী গ্রহণের দাওয়াত দেন। সর্বপ্রথম ইসলাম গ্রহণ করেন তাঁর স্ত্রী খাদীজা (রা)। তারপর তাঁর কিশোর চাচাতো ভাই আলী (রা), পরবর্তীতে যিনি তাঁর মেয়েকে বিয়ে করেছিলেন। তারপর তাঁর ঘনিষ্ট বন্ধু ও স্থানীয় বিশিষ্ট ব্যবসায়ী আবু বকর (রা) এই বাণী গ্রহণ করেন। তিনি

বাকিটুকু পড়ুন